মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৯ জানুয়ারি ২০২০

পটভূমি

আধুনিক শিল্প প্রযুক্তি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আমাদের শিল্পের নতুন নিয়োগকৃত ও কর্মরত কর্মীদের কারিগরি শিক্ষার মান ও দক্ষতার স্তর উন্নয়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন ১৯৮৩ সালে “ট্রেনিং ইনস্টিটিউট ফর কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ (টিআইসিআই)” প্রতিষ্ঠার জন্য একটি নতুন প্রকল্প গ্রহণ করে। ১৯৮৬ সালে এটি একনেকে ৮.২৫ কোটি টাকায় অনুমোদিত হয়। টিআইসিআই রাষ্ট্রপতি অনুমোদন পায় ১৯ সেপ্টেম্বর, ১৯৮৬ সালে। নেদারল্যান্ড সরকারের আর্থিক ও কারিগরি সহায়তায় এর প্রতিষ্ঠার যাত্রা শুরু হয় ১৯৮৮ সালে। এসময় নেদার‌্যান্ডস এর প্রতিষ্ঠান STAC এর সাথে BCIC এর একটি চুক্তি সাইন হয়। অনুদানের শর্ত অনুযায়ী একে দুটি পর্বে বিভক্ত করে এর স্থাপনের কার্যক্রম শুরু হয়।

 

১৯৯০ সালে ফেজ-১ এর কাজ সমাপ্ত হলে ১০ আগস্ট, ১৯৯০ সাল থেকে টিআইসিআই এর প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হয়। ফেজ-২ এর কার্যক্রম শুরুর পূর্বেই ১৯৯১ সালে প্রকল্পের প্রোফাইল বর্ধিত করা হয় এবং সংশোধিত প্রকল্পের ব্যায় বাড়িয়ে প্রায় ৪০.০২ কোটি টাকা অনুমোদিত হয়। পরবর্তীতে ১৯৯৩-৯৬ সাল নাগাদ ফেজ-২ এর কার্যক্রম অব্যহত থাকে এবং একই সাথে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলমান থাকে। ইতিমধ্যে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে টিআইসিআই প্রশিক্ষণ ব্যপক জনপ্রিয়তা পায় এবং দ্রুত প্রসার লাভ করে। ফলে টিআইসিআই প্রশিক্ষণের পরিচিতি শিল্পকারখানার কারিগরি জনবল এর বাইরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কারিগরি বিভাগসমুহের মাঝে ছড়িয়ে পড়ে।

 

পরর্তীতে দক্ষিন কোরিয়ার সহযোগী সংস্থা KOICA এর কারিগরি ও আর্থিক সহায়তায় জুন, ২০১৪ থেকে জুন, ২০১৯ মেয়াদে “Modernization and Strengthening of TICI” শীর্ষক আরেকটি প্রোজেক্টের সাহায্যে টিআইসিআই এর প্রশিক্ষণ মান যুগোপযোগী করা হয়। KOICA প্রোজেক্ট টিআইসিআই এর কারিকুলাম উন্নয়ন, নতুন একাডেমিক ভবন নির্মান, ১২টি নতুন ল্যাব অত্যাধুনিক প্রশিক্ষণ যন্ত্রপাতি দ্বারা সজ্জিত করণসহ পুরাতন ৩৪ টি ল্যাব/শপ আধুনিকায়ন করে। এছাড়া টিআইসিআই এর প্রশিক্ষকগণকে কোরিয়াসহ অন্যান্য দেশে প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য প্রেরন ছাড়াও প্রোজেক্ট চলাকালীন বিভিন্ন সময়ে কোরিয়ান এক্সপার্টগণ টিআইসিআই এ আগমন করে প্রশিক্ষকগণকে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন। বর্তমানে একজন অভিজ্ঞ কোরিয়ান ভলান্টিয়ার সার্ভিস প্রদানের জন্য টিআইসিআই চত্তরে দুই বছরের জন্য অবস্থান করছেন।

 

দেশের কারখানাসমূহে চাহিদার আলোকে টিআইসিআই এ প্রতি বছর এক/দুই সপ্তাহ মেয়াদী প্রায় ৫০টি আপগ্রেডেশন কোর্স উন্মুক্ত করা হয়। এছাড়া প্রতি বছর প্রায় ২৫টি পাবলিক/প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিল্প সংশ্লিষ্ট ৩৫/৩৬টি বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য তিন/চার সপ্তাহ মেয়াদী শিল্প প্রযুক্তি অভিযোজন কোর্স পরিচালনা করা হয়। সম্প্রতি চাহিদার প্রেক্ষিতে চাকুরী অনুসন্ধানকারীদের সুবিধার্থে ৩/৪ দিনের বিষয়ভিত্তিক স্বল্প মেয়াদী কোর্স শুরু করা হয়েছে। কোন প্রতিষ্ঠানের জনবলকে অধিকতর দক্ষ করে তোলার উদ্দেশ্যে তাঁদের চাহিদার প্রেক্ষিতে টেইলরমেড প্রশিক্ষণ কোর্সও আয়োজন করা হয়ে থাকে।  উল্লেখ্য যে, বিসিআইসি’র বিশাল ভর্তুকীতে ইন্সটিটিউট পরিচালিত হয় বিধায় স্বল্প ফি’তে প্রশিক্ষণ প্রদান সম্ভব হচ্ছে।

 

প্রশিক্ষণ সেবার পাশাপাশি টিআইসিআই সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাহিদা অনুসারে সফলতার সাথে কারিগরি সহায়তা প্রদান যাচ্ছে। টেস্টিং, ক্যালিব্রেশন, মেশিন ব্যালান্সিং, অটোমেশন প্রভৃতি সেক্টরে টিআইসিআই কখনো টিআইসিআই ল্যাবে আবার কখনো সাইটে গিয়ে অভিজ্ঞ এক্সপার্টদের সহযোগীতায় বিশ্বস্ততার সাথে প্রতিবছর প্রায় ৫০ টি কারিগরি সহায়তা সার্ভিস প্রদান করে যাচ্ছে।

 

বাংলাদেশের একমাত্র উচ্চমান সম্পন্ন টেকনিক্যাল ট্রেনিং ইনস্টিটিউট হিসেবে টিআইসিআই এর প্রতিটি সদস্য তাদের সর্বোচ্চটুকু দেশের জন্য দেওয়ার জন্য সর্বদা বদ্ধ পরিকর।



Share with :

Facebook Facebook